গুগল ট্রান্সলেট: গুগল ট্রান্সলেট বাংলা টু ইংলিশ করব কিভাবে?

গুগল ট্রান্সলেট কি : গুগল ট্রান্সলেট হচ্ছে গুগলের একটি পরিষেবা। এই পরিষেবা কে,  কেউ কেউ গুগল ট্রান্সলেটর বা ইংরেজিতে সংক্ষেপে “google tre” বলে থাকে। সাধারণভাবেই এটি অন্য সব ট্রান্সলেটর টুলের মত অনুবাদ করে থাকে। তবে যদি এটি শুধু সাধারণ অনুবাদ যন্ত্রের মত অনুবাদ ই করত তাহলে এর জনপ্রিয়তা এত শীর্ষে উঠত না!!! আমাদের পুরো আর্টিকেল জুড়ে থাকছে গুগল ট্রান্সলেট বাংলা টু ইংলিশ সহ এসব বিষয় নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা। সংক্ষেপে বলি, এই আর্টিকেলের যা যা থাকছে:

  • গুগল ট্রান্সলেট কি?
  • গুগল ট্রান্সলেট ইংলিশ টু বাংলা।
  • গুগল ট্রান্সলেট বাংলা টু ইংলিশ
  • গুগল ট্রান্সলেট অডিও।
  • গুগল ট্রান্সলেটর এর সম্পূর্ণ সেটিং।

আপনাদের যাদের বিদেশী বন্ধু কিংবা ভিনদেশীয় আত্মীয়-স্বজন আছে, তাদের ভাষা বুঝতে আপনাদের জন্য গুগল ট্রান্সলেট একটি নিত্য প্রয়োজনীয় টুল হতে পারে। এই টুল ব্যবহার করে বিশ্বের প্রায় অধিকাংশ ভাষাতেই অনুবাদ করা যায়। অনুবাদক যন্ত্র হিসেবে গুগল ট্রান্সলেটর বিশ্বের আনাচে-কানাচে জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে।

শুধু কি যোগাযোগের জন্য গুগল ট্রান্সলেটর মানুষজন ব্যবহার করে? আপনি হয়তো কোন ইংরেজি ব্লগে ইংরেজি লেখা পড়ছেন, কিন্তু যদি সে ইংরেজি লেখা আপনি বুঝতে না পারেন তাহলে আপনাকে অবশ্যই গুগল ট্রান্সলেটরর এর সাহায্য নিতে হবে।

মনে করেন আপনি আমার এই আর্টিকেলটিকে কোন আরবিও ব্যক্তিকে উপহার দিতে চান । তাহলে আপনি গুগল ট্রান্সলেটর এর সাহায্য নিয়ে এই লেখাগুলোকে আরবি তে রূপান্তরিত করে তাকে উপহার দিতে পারবেন।

গুগল ট্রান্সলেট কি?

গুগল ট্রান্সলেটর: আমি আগেই বলেছি এটি গুগোল কর্তৃক একটি পরিষেবা , যার মাধ্যমে বিশ্বের 500 মিলিয়ন এর অধিক মানুষকে ফ্রিতে ট্রানসলেশন সুবিধা দেওয়া হয়। পৃথিবীর অধিকাংশ মানুষই অনুবাদ করতে সমস্যার সম্মুখীন হন। আর যাদের অনুবাদ করার প্রয়োজন পড়ে তারা ভালভাবেই জানেন গুগল ট্রান্সলেটর কি? গুগল ট্রান্সলেটর দিয়ে কি কাজ করা হয়?

গুগল ট্রান্সলেটর হচ্ছে একটি মেশিন ট্রানসলেশন সিস্টেম । অর্থাৎ মেশিন ব্যবহার করে গুগল ট্রান্সলেটর ট্রান্সলেট করে থাকে। বাংলায় বলতে গেলে, গুগোল একটি যন্ত্র ব্যবহার করে কোন ভাষা কে সেই বাসা থেকে অন্য ভাষা তে রূপান্তরিত করে অর্থাৎ অনুবাদ করে।

বিখ্যাত টেক জায়ান্ট প্রতিষ্ঠানট গুগোল, “গুগল ট্রান্সলেটর” নামক এই প্রযুক্তিকে 2006 সালে লাঞ্চ করেন। অর্থাৎ গুগল ট্রান্সলেটর এর আত্মপ্রকাশ ঘটে 2006 সালে। তবে যখন এই প্রজেক্টটি টি লাঞ্চ করা হয়েছিল তখন কেবল মেশিন এর মধ্যেই অনুবাদ প্রক্রিয়া সীমাবদ্ধ ছিল। তার মানে, শুরুর দিকে গুগল নিজস্ব কাজের জন্য এই গুগল ট্রান্সলেটর মেশিন ব্যবহার করে অনুবাদ করতো।

এরপর 2010 সালে গুগল তাদের এই প্রজেক্টটি কে বিস্তৃতি করে। এ বছরেই গুগল সর্বপ্রথম গুগল ট্রান্সলেটর প্রোজেক্টের জন্য একটি এন্ড্রয়েড সফটওয়্যার তৈরি করে এবং একটি সার্ভারে ট্রান্সলেটর মেশিন স্থাপন করে।

এরপর আস্তে আস্তে গুগোল তার কার্যক্রমকে প্রসার করতে থাকে এবং বিভিন্ন সংযোজন ও বিয়োজন করতে থাকে।

এরপর 2014 সালে গুগল ট্রান্সলেটর আরো উন্নত হয়। এ সময় গুগল ট্রান্সলেটরে এমন কিছু বিষয় সংযোজিত হয় , যার ফলে কোন ডিভাইস ব্যবহারের মাধ্যমে ছবি কিংবা টেক্সট স্ক্যান করা সম্ভব হয়। অর্থাৎ এ বছর থেকেই সর্বপ্রথম গুগলে স্ক্যান করে ছবি কিংবা টেক্সট অনুবাদ করা সম্ভবপর হয়ে ওঠে।

এবং সর্বশেষ 2016 সালে গুগল ট্রান্সলেটর এ বড়োসড়ো পরিবর্তন আনা হয়েছিল। যার ফলে গুগল ট্রান্সলেটর দিয়ে খুব সহজেই ভয়েস ব্যবহার করে অনুবাদ করা সম্ভব হয়ে ওঠে। এগুলো ছিল গুগল ট্রান্সলেটরের উল্লেখযোগ্য ইতিহাস। তবে গুগল তাদের এই পণ্যটি কে নিয়মিত আপডেট করে থাকে।

সর্বশেষ 2016 সালের তথ্য অনুযায়ী , বিশ্বের প্রায় 500 মিলিয়ন এর অধিক মানুষ এই ট্রান্সলেশন টুলটি ব্যবহার করছে। এরপর 2021 সালের এপ্রিল মাসে গুগল ট্রান্সলেটর টুলে বিশ্বের প্রায় 109 টি গুরুত্বপূর্ণ ভাষা অনুবাদ করার জন্য সংযোজন করা হয়। সুতরাং বুঝতেই পারছেন এই টুলটি জনপ্রিয়তা কতদূর।

গুগল ট্রান্সলেটর কিভাবে কাজ করে?

গুগল ট্রান্সলেটর একটি মেশিন যা অনলাইনে কাজ সার্ভার সংযোগে কাজ করে। তবে এই টুলটি অনুবাদ করার জন্য একটি সুনির্দিষ্ট নিয়ম মেনে চলে। শুরুর দিকে গুগল ট্রান্সলেটর অনুবাদ করার জন্য অন্য কোন ভাষাকে সর্বপ্রথম ইংরেজি ভাষা তে রুপান্তর করে। তারপর সেই ইংরেজি ভাষাকে আপনার কাঙ্খিত ভাষা তে রুপান্তর করে।

কিন্তু সময়ের বিবর্তনে গুগল তার এই‌ টুলটিকে সময়োপযোগী করে তুলেছে। যার ফলে বর্তমানে আমরা খুব সহজেই এক ভাষা থেকে অন্য ভাষায় সরাসরি অনুবাদ করতে পারতেছি। অর্থাৎ আগেকার দিনের মতো প্রথমে অন্য ভাষা কে ইংরেজিতে অনুবাদ করার প্রয়োজন হয় না। গুগলের সার্ভার সমৃদ্ধ হওয়ার জন্য, খুব সহজেই এক ভাষা থেকে অন্য ভাষা তে সরাসরি অনুবাদ করা যায়। এই আর্টিকেলে আমরা বলবো কিভাবে আপনারা গুগল ট্রান্সলেট বাংলা টু ইংলিশ সঠিক পদ্ধতিতে করবেন।

গুগল ট্রান্সলেটর কিভাবে ব্যবহার করব? ( How to use “google translate” )

গুগল ট্রান্সলেটর ব্যবহারের নিয়ম: গুগল ট্রান্সলেটর ব্যবহার করে অনুবাদ করার জন্য আপনি তিনটি পদ্ধতি মেনে অনুবাদ করতে পারেন। তবে প্রত্যেক ক্ষেত্রেই একই ধরনের অনুবাদ আসবে। যেমন ধরেন আপনি যদি বাংলায় লিখেন, “আমি বাংলার মানুষকে ভালোবাসি” তাহলে এর ইংরেজি অনুবাদ হবে ” I love the people of Bengal ”

আমাদের বোদা উপরিউক্ত তিনটি পদ্ধতি হচ্ছে : ১। গুগল ট্রান্সলেট ওয়েবসাইট ব্যবহার করে অনুবাদ ২। গুগল সার্চ ব্যবহার করে অনুবাদ ৩। সফটওয়্যার ব্যবহার করে অনুবাদ

উপরের তিনটি পদ্ধতিই ব্যবহার করে অনুবাদ করা খুব সোজা। প্রত্যেকটি পদ্ধতির বর্ণনা নিচে দেওয়া হল:

অনলাইন গুগল অনুবাদ ওয়েবসাইট ব্যবহার করে ট্রান্সলেট

গুগল ট্রান্সলেট ওয়েবসাইট: যেহেতু অনুবাদক টুলটি অনলাইনে কাজ করে, তাই আমার মতে ওয়েবসাইট ব্যবহার করে অনুবাদ করা সবচেয়ে সহজ। এর জন্য আপনাকে অতিরিক্ত কোন সফটওয়্যার ডাউনলোড করতে হচ্ছে না।

স্টেপ ১:

সর্বপ্রথম আপনাকে, আপনার ল্যাপটপ কিংবা মোবাইল থেকে একটি ব্রাউজার এ যেতে হবে। সেখান থেকে আপনাকে গুগল ট্রান্সলেটর এর ওয়েবসাইটে যেতে হবে। সেখানে প্রবেশ করে আপনি নিচের মত একটি স্ক্রীন দেখতে পাবেন।

গুগল ট্রান্সলেট
Online google translate

উপরের স্ক্রিনে যে দুটো দেখতে পাচ্ছেন , সেখানে বাম পাশের বক্সে যা লিখবেন বামপাশের বক্সে তা অনুবাদ হয়ে যাবে। তবে এখানে সমস্যা হল কোন ভাষা থেকে কোন ভাষায় অনুবাদ হবে? বাংলাদেশিরা ডিফল্টভাবে যে কোন ভাষা থেকে ইংরেজি ভাষায় অনুবাদ করতে পারবে। তবে অধিকতর সুন্দর অনুবাদ এর জন্য আপনাকে ভাষা সিলেক্ট করে নিতে হবে।

উপরের স্ক্রিনশটের বাঁদিকে উপরে একটি (” ^ “) – ICON দেখা যাচ্ছে, এখানে ক্লিক করে আপনি ভাষা পরিবর্তন করে নিবেন। আপনি যদি বাংলা ভাষা থেকে ইংরেজি ভাষায় অনুবাদ করতে চান অর্থাৎ গুগল ট্রান্সলেট বাংলা টু ইংলিশ করতে চান  তাহলে এখানে বাংলা ভাষা সিলেক্ট করতে হবে।

 

স্টেপ-২:

এরপর বাম দিকের ঘরের উপরে আরো একটি (” ^ “) – Icon দেখা যাচ্ছে, এখানে ক্লিক করে আপনি ভাষা পরিবর্তন করে নিন, যে ভাষায় আপনি অনুবাদ করতে চান। অর্থাৎ আপনি বাংলা ভাষা কে ইংরেজি ভাষায় অনুবাদ করতে চাইলে এখানে ইংরেজি ভাষা সিলেক্ট করুন।

এরপর আপনার ইচ্ছামত বাম পাশের বক্সে বাংলা ভাষা যে কোন কিছু লিখুন। দেখবেন অটোমেটিক ডান পাশের ঘরে ইংরেজি অক্ষরে লেখা গুলো অনুবাদ হয়ে যাচ্ছে। এটিই মূলত গুগল ট্রান্সলেটর ওয়েবসাইট ব্যবহার করে ট্রান্সলেট করার পদ্ধতি।

অবশ্যই পড়ুন, 

গুগল সার্চ করে অনুবাদ

স্টেপ-১: গুগল সার্চ ব্যবহার করে কোন ভাষা অনুবাদ করার জন্য আপনাকে যে কোন ডিভাইস থেকে ব্রাউজার ওপেন করতে হবে। এবং আপনাকে ব্রাউজার এর সার্চ ইঞ্জিনে গিয়ে সার্চ করতে হবে “Google Translate” । এরপর আপনার ডিভাইসে নিচের মত একটি স্ক্রীন ওপেন হবে।

গুগল ট্রান্সলেট বাংলা টু ইংরেজি

এখানে ডান পাশে একটি বক্স এবং বাম পাশে একটি বক্স দেখতে পাচ্ছেন। বাম পাশের বক্সে লেখা আছে “enter text” এবং ডান পাশের বক্সে লেখা আছে ” Translation”। তার মানে আপনি এখানে বাম পাশে যা লিখবেন ডান পাশে তা অনুবাদ হয়ে যাবে।

স্টেপ-২: সার্চ দিয়ে ট্রান্সলেশন করতে আপনাকে সঠিকভাবে ভাষার গরমিল ঠিক করতে হবে। অর্থাৎ আপনি কোন ভাষা থেকে কোন ভাষায় অনুবাদ করবেন তা আগে থেকে ঠিক করে নিতে হবে। এজন্য আপনি নিচের স্ক্রিনশটটি দেখতে পারেন।

গুগল ট্রান্সলেট ইংরেজি টু বাংলা
গুগল অনুবাদ

1 চিহ্নিত স্থানে আপনি যে ভাষাটিকে অনুবাদ করতে যাচ্ছেন সে ভাষা টি সিলেক্ট করবেন। এবং দুই চিহ্নিত স্থানে আরেকটি ভাষা সিলেক্ট করবেন , যে ভাষাতে আপনি অনুবাদ করতে যাচ্ছেন।

উদাহরণস্বরূপ , আপনি যদি ইংরেজী থেকে বাংলাতে অনুবাদ করতে চান । তাহলে 1 চিহ্নিত স্থানে ইংলিশ ভাষা সিলেক্ট করুন এবং 2 চিহ্নিত স্থানে “বাংলা” ভাষা সিলেক্ট করুন।

এরপর আপনি ইচ্ছামত বামপাশের ঘরটিতে ইংরেজি ভাষা টাইপ করতে থাকুন। দেখবেন ডানপাশের ঘরটিতে অটোমেটিক ইংরেজি অক্ষরে আপনার লেখাগুলো অনুবাদ হয়ে যাচ্ছে।

পড়তে থাকুন,  গুগল ট্রান্সলেট বাংলা টু ইংলিশ

সফটওয়্যার ব্যবহার করে অনুবাদ

গুগল ট্রান্সলেটর অ্যাপস: আপনারা যারা উপরিউক্ত দুইটি ট্রিক্স ব্যবহার করে অনুবাদ করা ঝামেলা মনে করেন তাহলে আপনি সফটওয়্যার ডাউনলোড করতে পারেন। সফটওয়্যার ডাউনলোড করে অনুবাদ করা খুবই সহজ। এজন্য আপনাকে কোন ওয়েবসাইটে ঢুকতে হবে না কিংবা কোথাও লিখে সার্চ দিতে হবে না। অনুবাদ করার জন্য গুগোল ট্রান্সলেটর অ্যাপস একটি গুরুত্বপূর্ণ পদ্ধতি।

স্টেপ-১:

সফটওয়্যার ব্যবহার করে অনুবাদ করার জন্য আপনাকে সর্বপ্রথম Google translator সফটওয়্যার টি ডাউনলোড করতে হবে। ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন >>> download Google translator

ডাউনলোড করে সফটওয়্যারটি ইন্সটল করে নিন। ইনস্টল করার পর আপনি আপনার ডিভাইসে নিজের মত একটি স্ক্রীন দেখতে পাবেন।

গুগল অনুবাদ কি?
গুগল অনুবাদ কি?

স্টেপ-২:

এখানে আপনি উপরে একটি ফাঁকা জায়গা দেখতে পাচ্ছেন। এবং নিচে বাম ও ডান পাশে দুটি ভাষা দেখতে পাচ্ছেন। এখানে বামপাশে যে ভাষা থাকবে সে ভাষা থেকে অনুবাদ হবে এবং ডান পাশে যে ভাষা থাকবে আপনার লেখার সেই ভাষায় অনুবাদ হবে।

অর্থাৎ আপনি যদি হিন্দি থেকে ইংরেজি অনুবাদ করতে চান। তাহলে বামপাশের ঘরটিতে “Hindi” সিলেক্ট করতে হবে এবং ডান পাশের ঘরটিতে “English” সিলেক্ট করতে হবে।

এরপর আপনি উপরের ফাঁকা ঘরে হিন্দি লেখা শুরু করলে অটোমেটিক নিচে ইংরেজিতে অনুবাদ হওয়া শুরু করবে। তবে আপনি যদি হিন্দিতেৎশুধুমাত্র একটি শব্দ লিখেন তাহলে তা ইংরেজিতে অনুবাদ হওয়ার সাথে সাথে অতিরিক্ত হিসেবে অনেকগুলো সমজাতীয় শব্দার্থ বের হবে।

 

গুগল ট্রান্সলেট ইংলিশ টু বাংলা

গুগল ট্রান্সলেটর বাংলা: গুগল ট্রান্সলেটর ব্যবহার করে ইংরেজি থেকে বাংলায় অনুবাদ করার পদ্ধতি খুবই সহজ। এজন্য আপনাকে উপরের তিনটি পদ্ধতির যেকোনো একটি বেছে নিতে হবে। আমি উদাহরণস্বরূপ প্রথম পদ্ধতিটিকে বেছে নিলাম।গুগল ট্রান্সলেট english to bangla

Step-1:

আপনার ডিভাইসের যেকোনো ব্রাউজার ব্যবহার করে translate.google.com এই ওয়েবসাইটে গিয়ে ঢুকবেন। ঢোকার পর আপনি নিচের মত একটি স্ক্রীন দেখতে পাবেন।

গুগল ট্রান্সলেট
Online google translate

এখানে শুধু ভাষাগুলো চেঞ্জ করে নিলেই আপনি খুব সহজেই ইংরেজি থেকে বাংলায় অনুবাদ করতে পারবেন।

স্টেপ-২:

এই ধাপে আপনি শুধু ভাষাগুলো পরিবর্তন করে নেবেন। উপরের বাম পাশের 1 লেখা জায়গাটিতে ক্লিক করে ইংরেজি ভাষায় পরিবর্তন করে নেবেন। এবং ডান পাশে উপরে 2 নিহিত জায়গায় ক্লিক করে বাংলা ভাষায় পরিবর্তন করে নেবেন।

এরপর আপনিই বামপাশের ঘরটিতে আপনার প্রয়োজন অনুযায়ী ইংরেজি টাইপ করুন দেখবেন আপনার আপনি ডান পাশের ঘরটা অনুবাদ করে বাংলা হয়ে যাবে। এছাড়াও আপনি বাকি দুইটি পদ্ধতি ব্যবহার করতে পারেন। তবে প্রত্যেক ক্ষেত্রে একই ধরনের অনুবাদ আসবে।

গুগল ট্রান্সলেট বাংলা টু ইংলিশ

বাংলা থেকে ইংরেজিতে অনুবাদ: আমাদের দেশের অধিকাংশ লোক বাংলা থেকে ইংরেজিতে অনুবাদ করতে বিপাকে পড়েন। বিশেষ করে তারা যখন কোন বিদেশী বন্ধুকে মেসেজ পাঠান তখন আপনার কথাবার্তা বাংলা থেকে ইংরেজিতে অনুবাদ করে তাকে পাঠাতে হয়। বাংলা থেকে ইংরেজিতে ট্রান্সলেট করার একটি পদ্ধতি নিম্নরূপ।গুগল ট্রান্সলেট বেঙ্গলি টু ইংলিশ ।

প্রথমে আপনি আপনার ডিভাইস এর যেকোনো একটি ব্রাউজার এ গিয়ে ঢুকবেন। তারপর ব্রাউজারের সার্চ বারে টাইপ করবেন “google translator” । এরপর আপনি নিচের মত একটি স্ক্রীন দেখতে পাবেন।

গুগল ট্রান্সলেট ইংরেজি টু বাংলা
গুগল অনুবাদ

এখানে আপনাকে প্রয়োজন অনুসারে ভাষাগুলো চেঞ্জ করে নিতে হবে। যেহেতু আপনি বাংলা থেকে ইংলিশ অনুবাদ করতে যাচ্ছেন তাই ডিফল্ট ভাবে সেখানে ইংরেজি থেকে বাংলায় অনুবাদ করার পদ্ধতি থাকবে।

যদি কারো কারো ফোনে না থাকে তবে ভাষাগুলো প্রয়োজন অনুসারে চেঞ্জ করে নেবেন। এজন্য আপনাকে বাম পাশে “detect language” এ ক্লিক করে অনুবাদক ভাষা হিসেবে বাংলা ভাষাকে সিলেক্ট করবেন। এবং বাম পাশে ইংরেজি ভাষা সিলেক্ট করবেন। এবার আপনার ইচ্ছা অনুযায়ী বাম পাশের ঘরটিতে বাংলা লিখুন দেখবেন অটোমেটিক ইংরেজিতে অনুবাদ হয়ে যাচ্ছে।

পড়তে থাকুন, গুগল ট্রান্সলেট বাংলা টু ইংলিশ

গুগল ট্রান্সলেট ইংলিশ টু হিন্দি

ইংরেজি থেকে হিন্দিতে অনুবাদ: হিন্দিতে অনুবাদ করার প্রয়োজন পড়ে কেবলমাত্র ভারত বর্ষে অবস্থানকারীদের ক্ষেত্রে। তবে বাঙ্গালীদের যদি ভারতে কোন বন্ধু থেকে থাকে তাহলে তাকে মেসেজ পাঠাতে হিন্দি অনুবাদ করার প্রয়োজন পড়ে। আমার মতে বাংলাদেশ ও ভারতের সমস্ত বাঙালি হিন্দি ভাষা বোঝে এবং বলতে পারে। তবে লিখার ক্ষেত্রে যখন বিপাকে পড়ে তখন গুগল ট্রান্সলেটর সহায়তা নিতে হয়।তো আমি নিচে একটি পদ্ধতির কথা উল্লেখ করছি যা দিয়ে আপনি খুব সহজেই ইংরেজি থেকে হিন্দিতে ট্রান্সলেট করতে পারবেন,

ধাপ 1: প্রথমে আপনি আপনার ডিভাইসের গুগল ট্রান্সলেটর অ্যাপ টি ওপেন করুন। তারপর আপনি নিচের মত একটি স্ক্রিন দেখতে পাবেন।

গুগল অনুবাদ কি?
গুগল অনুবাদ কি?

এখানে আমার ফোনের ডিফল্ট ভাবে বাংলা থেকে ইংরেজিতে ট্রানসলেশন করার পদ্ধতিটি আছে। তবে কারো কারো ফোনে নাও থাকতে পারে। এজন্য আপনাকে বাম পাশের “Bengali” লেখাটিতে ক্লিক করে ইংরেজি ভাষা সিলেক্ট করে নিবেন। এবং বাম পাশের “English” লেখাটিতে ক্লিক করে হিন্দি ভাষা সিলেক্ট করে নেবেন।

ধাপ 2: এখন আপনি উপরের ফাঁকা ঘরটিতে আপনার ইচ্ছামত ইংরেজিতে লিখতে থাকুন। ইংরেজিতে লেখার সাথে সাথে নিচে দেখবেন অটোমেটিক আপনার ইংরেজি লেখা গুলো হিন্দি ভাষাতে অনুবাদ হয়ে যাচ্ছে।

আপনি সফটওয়্যার ব্যবহার না করেও ইংরেজি থেকে হিন্দিতে অনুবাদ করতে পারবেন। আমাদের আর্টিকেল এর প্রথম অংশে তিনটি পদ্ধতির কথা উল্লেখ আছে সেখান থেকে যে কোন একটি পদ্ধতি ব্যবহার করে আপনি খুব সহজেই ইংরেজি থেকে হিন্দিতে অনুবাদ করতে পারবেন।

Read more.

গুগল ট্রান্সলেট Extension

গুগল ট্রান্সলেট এক্সটেনশন: অনেকেই হয়তো এক্সটেনশন কথাটি শুনে চমকে গেলেন। আসলে এক্সটেনশন একটি সুবিধা যা গুগল ট্রান্সলেটর দিয়ে থাকে। যারা গুগল ট্রান্সলেট কি বুঝতে পেরেছেন তারা এটাও বুঝতে পারবেন আশা করি। এর মাধ্যমে আপনি কোন ব্রাউজারের সমস্ত টেক্সট অনুবাদ করতে পারবেন। আসলে এখানে ব্রাউজারের টেক্সট বলতে যা বোঝানো হয়েছে: আপনি যখন ব্রাউজ করবেন , বিভিন্ন ব্লগে বিভিন্ন ভাষায় আর্টিকেল দেখতে পাবেন। তখন সেই আর্টিকেলগুলো পৃথিবীর যে ভাষাতেই হোক না কেন আপনি খুব সহজেই সে ভাষা থেকে আপনার মাতৃভাষা তে অনুবাদ করতে পারবেন।

এই গুগল ট্রান্সলেটর এক্সটেনশন যেকোন ব্রাউজারে ইনস্টল করা যায়। ইনস্টল করে আপনি সম্পূর্ণ একটি পেজের অনুবাদ মুহূর্তের মধ্যেই দেখতে পাবেন। কোন ব্লগ পোস্ট এর সম্পূর্ণ আর্টিকেল অনুবাদ করার জন্য আপনাকে কপি-পেস্ট করতে হবে না কিংবা গুগল ট্রান্সলেটর ওয়েবসাইটে গিয়ে ট্রান্সলেট করতে হবে না। আপনি শুধু মাত্র একটি ক্লিকের মাধ্যমে সম্পন্ন ব্লগ পোষ্ট টি অনুবাদ করে পড়তে পারবেন। আপনি গুগল ক্রোমে কিভাবে গুগল ট্রান্সলেটর এক্সটেনশন ব্যবহার করবেন তা একটি পদ্ধতির মাধ্যমে দেখিয়ে দিচ্ছি:

ধাপ 1: প্রথমে আপি আপনার ডিভাইস থেকে গুগল ক্রোম ব্রাউজার এ প্রবেশ করুন। তারপর ডানপাশের সবার উপরে একটা চিহ্ন দেখতে পাবেন সেখানে ক্লিক করুন

Google translate extension
Google translate extension

ফ্রি ডাটা অপশন এ ক্লিক করার পর আপনি”more tools” অপশনটি দেখতে পাবেন। সেখানে ক্লিক করে আবার ” extensions” নামক অপশন দেখতে পাবেন। সেখানে ক্লিক করুন।

ধাপ 2: “Extensions” এ ক্লিক করার পর আপনি যে ইন্টারফেসটি দেখতে পাবেন তা স্ক্রল করে নিচে যাবেন, এবং নিচের মত একটি স্ক্রীন দেখতে পাবেন।

উপরের স্ক্রিনে আপনি সবার নিচে এবং বাম দিকে “”get more extensions” অপশনটিতে ক্লিক করুন। আপনি রিলেটেড এক্সটেনশনস হিসেবে গুগল ট্রান্সলেটর কে পাবেন না তাই এখানে ক্লিক করতে হবে। ক্লিক করার পর আপনার ডিভাইস এর স্ক্রিনের উপরের বামদিকে নিচের মত একটি স্ক্রীন ভেসে উঠবে।

 

গুগল ট্রান্সলেট চাই
google tre

এখান থেকে আপনাকে “google translate” লিখে সার্চ দিতে হবে এবং এরপর নিচের মতো আরো একটি স্ক্রীন ভেসে উঠবে।

গুগল ট্রান্সলেট কি?

এখান থেকে আপনাকে “Add to chrome” এ ক্লিক করতে হবে এবং এরপর আবার “Add extensions” এ ক্লিক করতে হবে।

ধাপ 3: এরপর আপনি আপনার ব্রাউজার স্ক্রিনের ডান দিকে উপরে গুগল ট্রান্সলেটরের থাম্বনেইল দেখতে পাবেন।

আপনি যদি কোন ব্লগ পোস্টকে সম্পূর্ণটাই অনুবাদ করতে চান তাহলে সেই ব্লগ পোস্টে ঢুকে এই গুগল ট্রান্সলেটর থামনেল টি তে ক্লিক করুন। থামনেল টিতে ক্লিক করার পর নিচের স্ক্রীনশটএর মত ” translate this page” এ ক্লিক করুন।

এরপর আপনি আপনার সুবিধামতো ভাষা গুলো পরিবর্তন করে নিন। দেখবেন অটোমেটিক আপনার প্রয়োজন মত পুরো পোস্টটি অনুবাদ হয়ে গেছে। আমি শুধু গুগল ক্রোমে কিভাবে এক্সটেনশন ইন্সটল করবেন তা বলে দিলাম। ঠিক একই ভাবে আপনি ফায়ারফক্স এ গুগল ট্রান্সলেট এক্সটেনশন ইনস্টল দিতে পারবেন।কম সময়ে গুগল ট্রান্সলেট বাংলা টু ইংলিশ করতে এই পদ্ধতি খুবই কার্যকরী।

 

গুগল ভয়েস ট্রান্সলেট

গুগোল ভয়েস ট্রান্সলেট আরো একটি জনপ্রিয় ফিচার। গুগল ট্রান্সলেটর এর সর্বশেষ ফিচারগুলোর একটি হচ্ছে এটি। এর মাধ্যমে আপনি বাংলা ভাষায় কথা বলে ইংরেজিতে অনুবাদ করতে পারবেন। এর জন্য আপনাকে অতিরিক্ত বাংলা ভাষায় টেক্সট টাইপিং করে অনুবাদ করতে হবে না। আপনি শুধুমাত্র মুখে বাংলায় বলবেন অটোমেটিক ইংরেজিতে অনুবাদ হয়ে যাবে। কিভাবে গুগল ভয়েস ট্রান্সলেট ব্যবহার করবেন তা নিচের পদ্ধতিতে দেখিয়ে দিচ্ছি।

ধাপ- 1: প্রথমে আপনি আপনার ডিভাইসের গুগোল ট্রান্সলেটর সফটওয়্যারটিতে প্রবেশ করুন। প্রবেশ করে আপনি কোন ভাষা থেকে কোন ভাষায় অনুবাদ করবেন তা ঠিক করে নিন। আপনি যদি বাংলা বলে ইংরেজিতে অনুবাদ করতে চান তাহলে বাম পাশে বাংলা ভাষা সিলেক্ট করুন এবং ডান পাশে ইংরেজি ভাষা সিলেক্ট করুন।

ধাপ- 2:এরপর নিচের স্পিকার চিহ্নিত স্থানটিতে ক্লিক করুন।

এরপর আপনি যা বলবেন তা অনুবাদ হয়ে যাবে। তবে এখানে কোন ভাষা থেকে কোন ভাষায় অনুবাদ হবে তা আপনাকে আগে থেকে ঠিক করে নিতে হবে। এ পদ্ধতিটি ব্যবহার করে খুব সহজেই অনুবাদ করা যায়।

তবে আপনি চাইলে গুগল কিবোর্ড এ এ পদ্ধতিটি ব্যবহার করতে পারেন। যদি জিবোর্ড কিবোর্ড এ এই পদ্ধতিটি ব্যবহার সম্পর্কে জানতে চান তাহলে অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন।

 

গুগল ট্রান্সলেট ক্যামেরা

ক্যামেরা ব্যবহার করে অনুবাদ: এটি গুগোল আরেকটি ফিচার জেটি ব্যবহার করে আমরা ক্যামেরা দিয়ে অনুবাদ করতে পারি। মনে করেন আপনার সামনে একগাদা ডকুমেন্ট সেগুলো আপনাকে টেক্সট এ রূপান্তর করে অন্যকে পাঠাতে হবে। এখন আপনি কি করবেন?

এজন্য আমি আপনাকে গুগল ট্রান্সলেটর ব্যবহার করার পরামর্শ দেই। কিভাবে ক্যামেরা দিয়ে গুগল ট্রান্সলেটর এর মাধ্যমে অনুবাদ করবেন তা নিম্নরূপ:

ধাপ 1: প্রথমে আপনি আপনার ডিভাইস থেকে গুগল ট্রান্সলেটর সফটওয়্যারটি ওপেন করুন। তারপর আপনাকে ভাষা পরিবর্তন করে নিতে হবে। আপনার পিকচার কিংবা ডকুমেন্ট যে ভাষার হবে সেই ভাষা বামপাশে সিলেক্ট করবেন। এবং ডান পাশে আরেকটি ভাষা সিলেক্ট করবেন যেই ভাষাতে আপনি আপনার ডকুমেন্ট কিংবা পিকচার টিকে অনুবাদ করতে চান।

ধাপ 2: এরপর আপনি “camera” নামক অপশনটিতে ক্লিক করবেন।

এখানে ক্লিক করার পর আপনার সামনে তিনটি অপশন আসবে। অপশন তিনটি যথাক্রমে, “Instant” , ” scan” , ” import ” ।

এখানে প্রথম দুইটি অপশন ব্যবহার করে আপনি সরাসরি অনুবাদ করতে পারবেন। তবে একটু ভিন্নতা রয়েছে। আপনাদের যদি ইন্টারনেট স্পিড ভালো থেকে থাকে তাহলে প্রথম দুইটি অপশন ব্যবহার করতে পারেন। আর যদি ইন্টারনেট স্পিড খারাপ মনে হয় তাহলে কোন ডকুমেন্ট এর ছবি তুলে “import” এ ক্লিক করবেন। এবং আপনার ডকুমেন্টের পিকচারটা আপলোড দিয়ে গুগল ট্রান্সলেট বাংলা টু ইংলিশ  ট্রান্সলেশন করে নিবেন।ঠিক এভাবে আপনি, গুগল ট্রান্সলেট বাংলা টু ইংলিশ করতেও পাবেন।

 

গুগল ট্রান্সলেট অ্যাপ ডাউনলোড

গুগল ট্রান্সলেট অ্যাপ: অনেকেই অ্যাপসটি ডাউনলোড করতে সমস্যার সম্মুখীন হয়। তাদের জন্য আমি গুগল প্লে স্টোরের একটি লিঙ্ক দিচ্ছি। যেখান থেকে আপনি খুব সহজেই গুগল ট্রান্সলেটর সফটওয়্যারটি ডাউনলোড করতে পারবেন। Download Google translator

এছাড়াও কিছু লোক গুগল ট্রান্সলেটর ডাউনলোড করে নিজের ফোন মেমোরিতে রাখতে চান। যাতে গুগল ট্রান্সলেটর ডিলিট করে দিয়ে ও পরে ইচ্ছামত আবার ফোন মেমোরি থেকে ইন্সটল করা যায়। তারা এই লিংক থেকে Google translate download করে নিন।

 

গুগল ট্রান্সলেট সম্পর্কিত সর্বশেষ কথা।

ট্রান্সলেট গুগল: বর্তমান সময়ের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অনুবাদক সফটওয়্যার হচ্ছে গুগল ট্রান্সলেট সফটওয়্যার। এর জনপ্রিয়তা বলতে গেলে আকাশচুম্বী। গুগল ট্রান্সলেট বাঙ্গালী দের কাছে খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি সফটওয়্যার। আশা করি আমি গুগল ট্রান্সলেট বাংলা টু ইংলিশ, গুগল ট্রান্সলেট কি,  গুগল ট্রান্সলেট কিভাবে কাজ করে ইত্যাদি সম্পর্কে এ টু জেড তথ্য দিতে পেরেছি। আমার তথ্যের যদি কোন প্রকার ঘাটতি থেকে থাকে তাহলে অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন। এবং আমার এই আর্টিকেলটি ভালো লাগলে অবশ্যই বন্ধুদের সাথে শেয়ার করে নিবেন যাতে তারা উপকৃত হয়।

>>>>Related Articles<<<<

Similar Posts

2 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.